স্বপ্ন নিয়ে আজব ও চমকে উঠার মত কিছু তথ্য

প্রায় সব মানুষই স্বপ্ন দেখে কেউ দিনে দেখে তো কেউ রাতে ইসলাম ধর্মে তো বলা হয়েছে, আল্লাহর প্রেরিত নবী-রাসূলদের একটি মাত্র মোজেজা আল্লাহ তায়ালা সাধারন মানুষকে দিয়েছেন আর সেটি হল স্বপ্ন স্বপ্ন এমন একটি জিনিস যে স্বপ্ন দেখার সময় মনেই হয়না যে সেটি আসলে স্বপ্ন বাস্তবে অংশ গ্রহন না করেও কোন ঘটনায় নিজেকে সম্পৃক্ত করা যায়।

শুধু মাত্র স্বপ্নের মাধ্যমে তাহলে আসুন আমরা জেনে নিই স্বপ্ন সম্পর্কে কিছু আজব ও চমকে উঠার মত তথ্য। আপনি জেনে অবাক হবেন কোন মানুষ কখনো মনে করতে পারেনা যে তার দেখা স্বপ্নটি আসলে কোথা থেকে শুরু হয়েছিল যার আইকিউ যত বেশী তিনি তত বেশী স্বপ্ন দেখেন। ছোট বাচ্চারা প্রথম ৩-৪ বছর কোন স্বপ্ন দেখে না স্বপ্নের উপর সর্বপ্রথম বই মিশরীয়রা লিখেছিলেন।

স্বপ্ন নিয়ে আজব ও চমকে উঠার মত কিছু তথ্য

প্রায় খ্রিষ্টপূর্ব ৪ হাজার বছর আগে জন্ম অন্ধ লোকেরাও কিন্তু স্বপ্ন দেখেন। অন্ধ লোকেরা স্বপ্নে বিভিন্ন প্রকার গন্ধ পান অথবা নানা ধরনের শব্দ শুনতে পান। মানুষ যখন স্বপ্ন দেখে তখন তার পুরো শরীর প্যারালাইজ হয়ে যায় ফলে ওই সময় মানুষের পক্ষে কিছুই করা সম্ভব হয়না, কেউ কেউ ভাবেন স্বপ্ন দেখতে সময় মস্তিষ্ক ক্লান্ত হয়ে পড়ে।

কিন্তু সত্য হল ওই সময় মস্তিষ্ক আরও বেশী সক্রিয় থাকে। স্বপ্নে যাদের দেখি তারা সবাই কোন না কোন ভাবে আমাদের পরিচিত মুখ হতে পারে। কেউ খুব কাছের নয়তো অনেক কাল আগে হয়তো আপনার পাশে বসে স্টেডিয়ামে খেলা দেখেছিল নয়তো রাস্তার পাশে দাঁড়িয়েছিল। এমন কেউ এর কারন আমাদের মস্তিষ্ক নতুন কোন চেহারা তৈরি করতে পারে না।

ঘুরে ফিরে পুরোনো চেহারাই বার বার আসে যেসব মানুষ স্বপ্ন দেখে না তাদের পার্সোনালিটি ডিজওয়ার্ডার নামক রোগ হতে পারে ঘুমের মধ্যে আমরা যে স্বপ্নগুলো দেখি তার শতকরা ৯৫ থেকে ৯৯ ভাগ স্বপ্নই আমরা মনে রাখতে পারি না জেগে উঠার ২০ মিনিটের মধ্যে সেগুলো আমাদের মাথা থেকে হারিয়ে যায়।

REM Rapid Eye Movement

তবে REM (Rapid Eye Movement )অবস্থায় দেখা স্বপ্ন গুলো মনে রাখা সহজ ১২% লোক স্বপ্ন দেখে। সাদাকালো মজার ব্যপার হচ্ছে ১৯১৫ থেকে ১৯৫০ সাল পর্যন্ত অধিকাংশ মানুষের স্বপ্নই ছিল সাদা কালো। ১৯৬০ সাল থেকে রঙ্গিন বা কালার স্বপ্ন দেখার প্রবনতা বেড়ে যায়। রঙ্গিন টিভি বা সিনেমার সাথে এব্যাপারটির যোগাযোগ থাকতে পারে বলে স্বপ্ন বিজ্ঞানীদের ধারনা।

আরেকটি তথ্য হল নাক ডাকা অবস্থায় কেউ স্বপ্ন দেখেনা কারন নাক ডাকা ও স্বপ্ন দুটি একসাথে ঘটতে পারেনা। শুধু মানুষই স্বপ্ন দেখেনা, স্বপ্ন দেখে পশুরাও যদি কোন কুকুর বা বিড়ালকে শুয়ে থাকা অবস্থায় সামনের বা পিঠনের পাগুলো নড়াচড়া করতে দেখেন। তা হলে বুঝবেন সে আসলে স্বপ্ন দেখছে স্বপ্নে আপনি কোন কিছু পড়তে পারবেন না।

এমনকি স্বপ্নে আপনি সময়ও দেখতে পারবেন না যদি চেষ্টা করেন তাহলেও। না মানুষ সাধারনত সকাল বেলা লম্বা স্বপ্ন দেখে থাকে সেই স্বপ্নের স্থিতিকাল হয় ৩০-৪০ মিনিট মানুষ ঘুমে। প্রতি দেড় ঘন্টায় কোন না কোন স্বপ্ন দেখে থাকে মানুষ তার জীবনদ্দশায় ৬সাল সমপরিমান। সময় স্বপ্ন দেখে কাটায় পুরুষদের স্বপ্নে যারা আনাগোনা করে তার ৭০ ভাগই পুরুষ আর মেয়েদের বেলায় এই ভাগ হচ্ছে ৫০।

অর্থাৎ অর্ধেক পুরুষ আর বাকি অর্ধেক নারী কিছু স্বপ্ন আছে যা বেশীর ভাগ মানুষ জীবনের কোন। না কোন সময় দেখে থাকেন যেমন- উঁচু স্থান থেকে নীচে পরে যাওয়া কথা বলতে চাচ্ছেন। কিন্তু কথা বলতে পারছেন না অথবা প্রাপ্ত বয়স্ক নারী পুরুষ সবাই সেক্সুয়্যাল স্বপ্ন দেখে আর স্বপ্ন দেখলে মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা বাড়ে।

এই পৃথিবীর উল্লেখযোগ্য কিছু আবিস্কার স্বপ্নের মাধ্যমে হয়েছিল বলেই পৃথিবীবাসীকে জানিয়েছিলেন সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞানীরা। যেমন সেলাই মেশিন আবিস্কারের সুত্রটি স্বপ্নের মাধ্যমেই পেয়েছিলেন এলিয়াস হাও এছাড়া ফ্রান্সিসের সাথে মিলে ডিএনএ’র রহস্য উদঘাটন করা। জেমস ওয়াটসন নাকি স্বপ্নেই পেয়েছিলেন সমাধান। এছাড়া ল্যারি পেইজের গুগলের আইডিয়া নিকোলা টেসলার এসি কারেন্টের আইডিয়া এবং মেন্ডিলিফের প্রিয়োডিক টেবিল বানানোর আইডিয়া স্বপ্ন থেকেই পাওয়া।

Leave a Comment