পৃথিবীতে আইনের জন্মদাতা সম্রাট হাম্বুরাবির ১২ আইন

ব্যাবিলনীয় সভ্যতার প্রথম সম্রাট হাম্বুরাবি স্বাধীন হতে চাওয়ার ইচ্ছা যেন স্বেচ্ছাচারিতায় রূপ না নেয়, এ লক্ষ্যে প্রথম আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। হাম্বুরাবি ছিলেন অ্যামেরিটাস নামক রাজবংশের ষষ্ঠ রাজা খ্রিস্টপূর্ব ১৭৯২ থেকে ১৭৫০ সাল পর্যন্ত রাজত্ব করেছেন।

ব্যাবিলনিয় এ সম্রাট আইনের জন্মদাতা সম্রাট হাম্বুরাবি ছিলেন একজন ধার্মিক। মানুষ তার প্রনীত আইনকে বলা হয় ‘দ্যা কোড অফ হাম্বুরাবি’। তিনি প্রায় ২৮২ টি আইনের ধারা প্রনয়ন করেছিলেন। এখন আমি আপনাদেরকে জানাচ্ছি হাম্বুরাবি প্রনীত এমনই ১২টি আইনের কথা। কোন ব্যাক্তি যখন অন্য আরেকজনের নামে কোন অভিযোগ করবে।

তখন অভিযুক্তকে নদীর পানিতে ঝাপিয়ে পরতে হবে। অভিযুক্ত সেই ব্যাক্তি যদি ডুবে যায়, তাহলে প্রমানিত হবে যে সে আসলেই দোষী। এবং তখন আভিযোগকারি আভিযুক্তের ঘর বাড়ি সব পেয়ে যাবে আর যদি অভিযুক্ত ব্যক্তি কোন ধরনের আঘাত ছাড়াই নদীর পানি থেকে সাতরে তীরে চলে আসতে পারে।

পৃথিবীতে আইনের জন্মদাতা

তাহলে প্রমানীত হবে যে সে আসলে নির্দোষ। এক্ষেত্রে মিথ্যা অভিযোগ আনার কারণে অভিযোগকারীর মৃত্যুদণ্ড হবে। কোন বিচারকের কোন লিখিত রায় যদি পরবর্তিতে ভুল প্রমাণীত হয় এবং যদি দেখা যায় যে ভুলটা ঐ বিচারকের নিজের কারণে হয়েছে তাহলে তিনি শাস্তি হিসাবে যে জরিমানা করেছিলেন তার ১২ গুন বেশি জরিমানা তাকে দিতে হবে।

এবং জনসমুক্ষে তাকে বিচারকের আসন থেকে আপসারণ করা হবে। আর ভবিষ্যতে সে কখনোই বিচার কাজে অংশ নিত পারবে না। শল্য চিকিৎসার সময়ে ডাক্তারের ভুলের কারণে যদি রোগীর মৃত্যু হয় বা অঙ্গহানী হয় তাহলে ডাক্তারে হাত কেটে দেয়া হবে। যদি কোন ব্যক্তি কোন বাড়ির দেয়াল ভেঙ্গে বা গর্ত করে চুরি করতে গিয়ে ধরা পরে ও দোষী প্রমানীত হয় তাহলে সেই গর্তের সামনেই তার মৃত্যুদণ্ড হবে এবং সেখানেই তাকে পুতে ফেলা হবে।

৭ আজব জিনিস যা শুধু দুবাইয়েই দেখতে পাবেন

ধরা যাক কোন কৃষক চাষের জন্য টাকা ধার নিল বা জমি ভাড়া নিল। কিন্তু প্রবল ঝড় বৃষ্টি বা খড়ার কারণে সে ফসল উৎপাদনে যদি ব্যর্থ হয় তবে সেই বছর তাকে ঋণের টাকা বা জমির ভাড়া দিতে হবে না। যদি কোন জলাধারের মালিক খুব অলস হয়, আর সেই অলসতার কারণে তার জলাধারের পাড় ভেঙ্গে পানি আশেপাশের জমির ফসল ভাসিয়ে নিয়ে যায় তাহলে ঐ জলাধারটি নিলামে বিক্রী করে দেয়া হবে।

সম্রাট হাম্বুরাবির ১২ আইন

আর সেই টাকা দিয়ে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে। কোন বনিক, ব্যবসার উদ্দ্যেশ্যে বিনিয়োগ কারীর কাছ থেকে টাকা ধার নিল। কিন্তু বানিজ্য যাত্রা পথে দুস্কৃতিকারীরা তার সব টাকা পয়সা ছিনিয়ে নিলে। সে যদি বনিক দেবতার নামে কিরা কেটে বলে যে আসলেই সে ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছে।

তাহলে বিনিয়োগকারিকে তার সকল দাবীদওয়া তুলে নিতে হবে। যদি বিবাহিত স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কোন রকম দৈহিক সম্পর্ক স্থাপিত না হয়, তাহলে তাদের বৈবাহিক সম্পর্ক আর থাকবে না। যদি কোন স্ত্রী অন্য কোন পুরুষের সাথে পরকিয়া সম্পর্কে আবদ্ধ হয় তাহলে দুজনকেই বেধে নদীতে নিক্ষেপ করা হবে। তবে স্বামী যদি স্ত্রীকে ক্ষমা করে দেয় তাহলে সে আর কোন শাস্তি পাবে না, শাস্তি পাবে প্রেমিক।

একাই যদি কোন পালক সন্তান, তার বাবা মা কে বলে যে “তুমি আমার বাবা/মা নও” তাহলে তার জিব কেটে নেয়া হবে। যদি কোন সন্তান তার পিতাকে শাররিক ভাবে আঘত করে তবে তার হাত কেটে নেয়া হবে। মারামরি করে কোন ব্যাক্তি অন্য কোন ব্যাক্তির চোখ তুলে নিলে আক্রমনকারীরও চোখ তুলে নেয়া হবে। যদি হাড় ভাংগে তাহলে আক্রমনকারীরও একটা হাড় ভেংগে দেয়া হবে দাঁত ভাংগলে দাঁত তুলে ফেলা হবে।

1 thought on “পৃথিবীতে আইনের জন্মদাতা সম্রাট হাম্বুরাবির ১২ আইন”

  1. Pingback: বিশ্বের ১০ বিস্ময়কর প্রাকৃতিক ঘটনা – Yify Subtitles

Leave a Comment